Tuesday, March 1, 2011

আটকাবস্থায় নির্যাতন বন্ধে প্রজ্ঞাপন জারি করুন

 আটকাবস্থায় রিমান্ডের নামে নির্যাতন বন্ধ করতে বিশেষ প্রজ্ঞাপন জারি করার জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান।

গতকাল সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘বাংলাদেশ সংখ্যালঘু মানবাধিকার প্রতিবেদন ২০১০’ প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান। গ্লোবাল হিউম্যান রাইটস ডিফেন্স (জিএইচআরডি) এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব হিউম্যান রাইটস (বিআইএইচআর) ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

এতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উদ্দেশে মিজানুর রহমান বলেন, ‘আটকাবস্থায় নির্যাতন, মৃত্যু কাম্য নয়। এটি বন্ধে আইন দরকার নেই। শুধু একটি প্রজ্ঞাপন জারি করুন।’ যদি কেউ নির্যাতন করেন, সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা এবং তদন্তে দোষী হলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা উল্লেখ করে ওই প্রজ্ঞাপন জারির অনুরোধ জানান তিনি।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে নির্যাতন ও হত্যার ঘটনা তুলনামূলকভাবে কমেছে উল্লেখ করে মিজানুর রহমান বলেন, ‘তবে আমরা চাই, এটি শূন্যের কোঠায় নিয়ে আসতে।’ সংখ্যালঘুদের মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনাও লক্ষণীয় মাত্রায় কমেছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

অনুষ্ঠানের আয়োজকেরা জানান, ২০১০ সালে সারা দেশে সংখ্যালঘুদের ওপর মানবাধিকার লঙ্ঘনের এক হাজার ৬৫০টি ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে তাঁরা ৭০টি ঘটনার তদন্ত করেছেন। তাঁরা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে এ প্রতিবেদন প্রকাশের কথা জানান।

আয়োজকদের এ বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান প্রথমেই এটি না করার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘শুরুতেই বহির্বিশ্বের কাছে না গিয়ে আগে কমিশনকে বলুন। কমিশন কিছু করতে ব্যর্থ হলে বহির্বিশ্বে যান।’

অনুষ্ঠানে মূল প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন বিআইএইচআরের নির্বাহী পরিচালক শাহানূর ইসলাম। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বিআইএইচআরের সভাপতি মোহাম্মদ আলমগীর, নেদারল্যান্ডস-ভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন জিএইচআরডির পরিদর্শক রবীন্দ্র ঘোষ প্রমুখ বক্তব্য দেন।
Post a Comment